Category Archives: শিক্ষা

পুরুষের যে গুণটিকে চেহারার চেয়েও বেশি গুরুত্ব দেয় মেয়েরা!

পুরুষের যে গুণটিকে চেহারার চেয়েও বেশী গুরুত্ব দেয় মেয়েরা!

নারী কিংবা পুরুষ উভয়েরই কাউকে পছন্দ করার ক্ষেত্রে কিছু নিজস্ব রীতি রয়েছে। কাউকে পছন্দ করার ক্ষেত্রে কোন বিষয়গুলো নারী গুরুত্ব দেয়, তা নিয়ে একটি গবেষণা করা হয়েছে। এতে উঠে এসেছে এমন কিছু বিষয়, যা আগে জানা যায়নি। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ইন্ডিপেনডেন্ট। এ গবেষণার জন্য নারীদের… বিভিন্ন ধরনের পুরুষের ছবি দেখানো হয় এবং তা থেকে কাদের ভালো লাগে তা জানাতে বলা হয়। তাদের ছবির পেছনের কাহিনী ছিল মূল কৌশল। বিভিন্ন ছবিতে তুলে ধরা হয় তাদের কেউ গৃহহীন মানুষকে সাহায্য করছে

প্রাথমিক সমাপনী ও জেএসসি’র ফল প্রকাশ : রেজাল্ট দেখা যাবে যেভাবে

প্রাথমিক সমাপনী ও জেএসসি'র ফল প্রকাশ : রেজাল্ট দেখা যাবে যেভাবে

বৃহস্পতিবার সকালে গণভবনে এক অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবারের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন। এরপর আট শিক্ষা শিক্ষা বোর্ড ও মাদ্রাসা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা যার যার বোর্ডের  ফলের অনুলিপি দেন প্রধানমন্ত্রীর হাতে। প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষায় ফলাফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। পরে ১৮ জন শিক্ষার্থীর হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে এবারের পাঠ্যপুস্তক উৎসবের উদ্বোধন করেন সরকারপ্রধান। তিনি জানান, প্রাথমিক সমাপনীতে

যেভাবে জানা যাবে জেএসসি-জেডিসি-পিএসসির ফল

যেভাবে জানা যাবে জেএসসি-জেডিসি-পিএসসির ফল

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি), জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি),  প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী (পিএসসি) পরীক্ষার ফল আজ ৩১ ডিসেম্বর একযোগে প্রকাশিত হবে। দুপুর ১টায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে জেএসসি ও জেডিসির ফল আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করবেন। অন্যদিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান তাঁর মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফল তুলে ধরবেন।   এবার জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষায় ২৩ লাখ ২৫ হাজার ৯৩৩ জন শিক্ষার্থী এবং প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ৩২ লাখ ৫৪

নারকেলের সব ম্যাজিকি গুনাগুন

নারকেলের সব ম্যাজিকি গুনাগুন

ডাব না পাড়লে কী হয়? উত্তরটা সহজ ‘নারকেল’। যা দিয়ে পিঠাপুলি তৈরি তো হয়ই। আরও আছে এর নানা কাজ। নারকেল তেলের কদর তো সবখানে। ফেলনা নয় এর পানি বা শাঁসও। রূপচর্চায় এর বিশেষ সমাদর আছে। আয়ুর্বেদা রিসার্চ অ্যান্ড হেলথ সেন্টারের অন্যতম স্বত্বাধিকারী সারওয়াত আবেদ বলেন, প্রাচীনকাল থেকেই নানা রকম স্বাস্থ্য সমস্যা সমাধানে নারকেলের ব্যবহার হয়ে আসছে। এ ছাড়া ডাবের পানি শরীরের পানিশূন্যতা রোধ করে, বাড়তি উদ্দীপনা জোগায়। ত্বকের লাবণ্য বাড়াতে ফেসিয়ালের সময় নারকেল তেলের ব্যবহার করা যায়। রূপ রুটিনে তো

রক্তদানের ১০টি উপকারিতা

কখনও ভেবে দেখেছেন কি, আপনার দান করা একব্যাগ অর্থাৎ মাত্র ৩৩০মিলি রক্ত একজন মানুষের জীবন রক্ষা করতে পারে! বর্তমানে বাংলাদেশে প্রতি বছর ৪ লাখ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন হয়।। এবং এই রক্তের একটা বড় অংশই আসে পেশাদার রক্ত বিক্রেতার কাছ থেকে। উল্লেখ যে পেশাদার বিক্রেতাদের রক্তকে দূষিত রক্ত হিসেবেই চিহ্নিত করা হয়। কেননা এদের পেশাদার বিক্রেতাদের মাঝে একটা বড় অংশ আছে যারা কিনা বিভিন্ন রকম নেশায় কিংবা রগে আক্রান্ত। অনেক সময়েই নিরুপায় হয়ে এই দূষিত রক্ত গ্রহণ করে জটিল রোগে আক্রান্ত হন অনেক মানুষ, এমনকি মৃত্যুবরণও করে থাকেন।সুতরাং বুঝতেই পারছেন যে কেনা রক্ত কোনও ভাবেই নিরাপদ নয়। তাই আপনি যদি নীরোগ ও সুস্থ হয়ে থাকেন, তাহলে অতি অবশ্যই আপন বা পরিচিত জনদের প্রয়োজনের সময় রক্তদানে এগিয়ে আসুন। শুধু তাই নয়, মানবতার সেবায় এগিয়ে আসতে চাইলে দান করতে পারেন বিভিন্ন সংস্থাতেও কিংবা কারো প্রয়োজনে । একজন সুস্থ ও নীরোগ মানুষ প্রতি ৩ মাস অন্তর অন্তর রক্ত দান করতে পারেন। এতে শরীরের কোনও ক্ষতি তো হয়ই না, বরং আপনার স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী এই রক্তদান। কিভাবে? চলুন, বিস্তারিত ব্যাখ্যা করা যাক। রক্তদানের উপকারিতাঃ- ১. রক্তদান স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী। কেননা রক্তদান করার সঙ্গে সঙ্গে আপনার শরীরের মধ্যে অবস্থিত ‘বোন ম্যারো’ নতুন কণিকা তৈরির জন্য উদ্দীপ্ত হয়। রক্তদানের ২ সপ্তাহের মধ্যে নতুন রক্তকণিকা জন্ম হয়ে ঘাটতি পূরণ হয়ে যায়। আর বছরে ৩ বার রক্তদান আপনার শরীরে লোহিত কণিকাগুলোর প্রাণবন্ততা বাড়িয়ে তোলে ও নতুন কণিকা তৈরির হার বাড়িয়ে দেয়। ২. নিয়মিত রক্তদানকারীর হৃদরোগ ও হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কম অনেকটাই ৩. নিয়মিত স্বেচ্ছায় রক্তদানের মাধ্যমে বিনা খরচে জানা যায় নিজের শরীরে বড় কোনো রোগ আছে কিনা। যেমন : হেপাটাইটিস-বি, হেপাটাইটিস-সি, সিফিলিস, এইচআইভি (এইডস) ইত্যাদি। ৪. সম্প্রতি ইংল্যান্ডের এক গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত স্বেচ্ছায় রক্তদানকারী জটিল বা দুরারোগ্য রোগ-ব্যাধি থেকে মুক্ত থাকেন অনেকাংশে। যেমন, নিয়মিত রক্তদান ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়ক। ৫. রক্তে কোলেসটোরলের উপস্থিতি কমাতে সাহায্য করে নিয়মিত রক্তদান। ৬. মুমূর্ষু মানুষকে রক্তদান করে আপনি পাচ্ছেন মানসিক তৃপ্তি। কারণ, এত বড় দান যা আর কোনোভাবেই সম্ভব নয়। ৭. রক্তদান ধর্মীয় দিক থেকে অত্যন্ত পুণ্যের বা সওয়াবের কাজ। একজন মানুষের জীবন বাঁচানো সমগ্র মানব জাতির জীবন বাঁচানোর মতো মহান কাজ। আমাদের সকলের ধর্মই আমাদের এই শিক্ষা দিয়ে থাকে। ৮. রক্তদানে আপনার নিজের অর্থ সাশ্রয়-ও হয়। রক্তদান কেন্দ্রের মাধ্যমে রক্ত দিলে পাঁচটি পরীক্ষা সম্পূর্ণ বিনা খরচে করে দেয়া হয় যা বাইরে করলে খরচ লাগবে প্রায় তিন হাজার টাকার মতো। সেগুলো হলো-এইচআইভি/এইডস, হেপাটাইটিস-বি, হেপাটাইটিস-সি, ম্যালেরিয়া ও সিফিলিস। তাছাড়া রক্তের গ্রুপও নির্ণয় করা হয়। ৯. নিয়মিত রক্তদান Hemochromatosis প্রতিরোধ করে। শরীরে অতিরিক্ত আয়রনের উপস্থিতিকে Hemochromatosis বলে। ১০. স্থূল দেহী মানুষদের ক্ষেত্রেও রক্তদান অত্যন্ত সহায়ক ভূমিকা পালন করে ওজন কমাতে।

কখনও ভেবে দেখেছেন কি, আপনার দান করা একব্যাগ অর্থাৎ মাত্র ৩৩০মিলি রক্ত একজন মানুষের জীবন রক্ষা করতে পারে! বর্তমানে বাংলাদেশে প্রতি বছর ৪ লাখ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন হয়।। এবং এই রক্তের একটা বড় অংশই আসে পেশাদার রক্ত বিক্রেতার কাছ থেকে। উল্লেখ যে পেশাদার বিক্রেতাদের রক্তকে দূষিত রক্ত হিসেবেই চিহ্নিত করা হয়। কেননা এদের পেশাদার বিক্রেতাদের মাঝে একটা বড় অংশ আছে যারা কিনা বিভিন্ন রকম নেশায় কিংবা রগে আক্রান্ত। অনেক সময়েই নিরুপায় হয়ে এই দূষিত রক্ত গ্রহণ করে জটিল রোগে আক্রান্ত

আপনার চুলের যত্ন চারটি খাবারের উপরে ছেড়ে দিন

আপনার চুলের যত্ন চারটি খাবারের উপরে ছেড়ে দিন

কোন খাবার খেলে আপনার চুল থাকবে সুন্দর ও স্বাস্থবান তা কি জানেন? শীতে চুল রুক্ষ হয়ে যায় শরীরের মতোই তাও কি জানেন? না জানলে সমস্যা নেই। কিন্তু এবার জেনে নিন। কি খেলে শরীরের মতোই আপনার চুলও থাকবে স্বাস্থবান ও সুন্দর। নিচে চারটি খাবারের নাম দেয়া হলো যা নিয়মিত খেলে চুল নিয়ে আর ভাবতে হবে না আপনাকে।   তাহলে আসুন জেনে নেই কোন খাবারে কি পুষ্টিগুণ।   পালং শাক: এই শাকে আছে প্রচুর পরিমানে আয়রন। যা চুলকে তাড়াতাড়ি বেরে উঠতে সাহায্য

যে ৬ টি যন্ত্রণা পরিবারের ছোটো সন্তানদের পোহাতে হয়

যে ৬ টি যন্ত্রণা পরিবারের ছোটো সন্তানদের পোহাতে হয়

সকলের মতে বাড়ির ছোটো সন্তান হওয়ার মজাই আলাদা। কারণ বাবা-মা বড় ভাই বোনের অনেক বেশি আদর থাকে। এবং প্রত্যেকেই বলেন বাবা মা অনেক বেশি আদরেই ছোটজনকে মাথায় তুলে ফেলেন। কথাটি কিছুটা হলেও সত্য। কিন্তু তারপরও এর আড়ালে ছোটো হওয়ার যন্ত্রণা কিন্তু বেশ ভালো করে সহ্য করতে হয় বাড়ির ছোটো সন্তানকে। অনেকেই ভাবতে পারেন কি এমন যন্ত্রণা? যিনি ঘরের ছোটো তিনি কিন্তু বেশ ভালোই বোঝেন। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক বাড়ির ছোটজনের যন্ত্রণা পোহানোর কিছু বিষয়। ১) বাড়ির সবাই আপনাকে ছোটো

৫টি দারুণ কৌশলে ব্যক্তিত্বের জাদু বাড়িয়ে নিন, হয়ে উঠুন সম্মানের যোগ্য!

৫টি দারুণ কৌশলে ব্যক্তিত্বের জাদু বাড়িয়ে নিন, হয়ে উঠুন সম্মানের যোগ্য!

এমন কেউ কি আছেন, যিনি নিজের ব্যক্তিত্বকে সকলের সামনে তুলে ধরতে চান না? একজন ব্যক্তিত্বহীন মানুষ যতই সুন্দর হোক না কেন, সকলের চোখে সম্মানের পাত্র হয়ে উঠতে পারেন না। ব্যক্তিত্ব সেই একটি জিনিস, যা যে কোন মানুষের জীবনকে বদলে দিতে পারে। জেনে নিন ৫টি সহজ কৌশল একজন শক্তিশালী ও সম্মানিত ব্যক্তিত্বের মানুষ হয়ে ওঠার এবং বদলে নিন নিজের জীবন। সামাজিক, মিশুক, হাসিখুশি এই তিনটি গুণ যে মানুষের মাঝে আছে, তিনি সকলের কাছেই পরম কাঙ্ক্ষিত হয়ে ওঠেন। সামাজিক মানে অন্যের বিষয়ে

যে ৪ ধরণের মানুষের সাথে বন্ধুত্ব ভেঙে ফেলা উচিত আজই নিজেকে খুঁজে পাওয়ার জন্য

যে ৪ ধরণের মানুষের সাথে বন্ধুত্ব ভেঙে ফেলা উচিত আজই নিজেকে খুঁজে পাওয়ার জন্

সকলেই বলেন বন্ধুত্ব হলো আত্মার বন্ধন। এই বন্ধনটি সত্যিকার অর্থেই কেউ কারো জন্য গড়ে দেয় না এবং এটি কোনো রক্তেরও বন্ধন নয়। এই একটিমাত্র সম্পর্ক মানুষ নিজের ইচ্ছায় নিজের মতো করে করে থাকেন যা পুরো জীবন পাশাপাশি থাকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয় কোনো কাগজে কলমে লেখা ছাড়াই। কিন্তু সব বন্ধুত্বই কি আপনার জন্য ভালো? না, কিছু মানুষের সাথে বন্ধুত্ব থাকার কারণেই কিন্তু আপনি এগিয়ে যেতে পারছেন না জীবনে। হয়তো আপনার চোখে এখন ধরা পড়ছে না কিন্তু পরবর্তীতে ঠিকই পড়বে। কিন্তু তখন আফসোস

সুগন্ধি কালোজিরার আশ্চর্য সব উপকারিতা

সুগন্ধি কালোজিরার আশ্চর্য সব উপকারিতা

 সাধারণত কালোজিরা নামে পরিচিত হলেও কালোজিরার আরো কিছু নাম আছে, যেমন- কালো কেওড়া, রোমান করিয়েন্ডার বা রোমান ধনে, নিজেলা, ফিনেল ফ্লাওয়ার, হাব্বাটুসউডা  ও কালঞ্জি ইত্যাদি। কালোজিরার বৈজ্ঞানিক নাম nigella sativa। যে নামেই ডাকা হোকনা কেন এই কালো বীজের স্বাস্থ্য উপকারিতা অপরিসীম। ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া নিধন থেকে শুরু করে শরীরের কোষ ও কলার বৃদ্ধিতে সহায়তা করে কালোজিরা। শুধুমাত্র স্বাস্থ্যের জন্যই না কালোজিরা চুল ও ত্বকের জন্যও অনেক উপকারি। প্রত্যেকের রান্নাঘরেই কালোজিরা থাকে যা খাবারকে সুবাসিত করে। আসুন আমরা আজ আশ্চর্য বীজ কালোজিরার

« Older Entries