Category Archives: প্রেমের গল্প

একটি অসাধারণ ভালবাসার গল্প

একটি অসাধারণ ভালবাসার গল্প

রূপে নয়, গুনী ব্যক্তিকেই ভালোবাসা উচিত! ক্লাসের সুন্দরী শান্ত মেয়ে রিয়া। কারো সাথে তেমন কথা বলে না। চোখ দেখলে সব ভূলার মত অবস্থা সবার। আর তার ঠোট তো ছিল রক্তে লাল, অবশ্যই মেয়েটা হালকা গোলাপি লিপষ্টিক ব্যবহার করত। অন্য আরেক টি ছেলে জয়। পড়ালেখায় ও ভালো। প্রথম ক্লাসেই রিয়া কে দেখে কেমন যেন ভালো লেগে যায়। কিছু দিন পর দেখতে দেখতে ভালোবাসায় রৃপ নেয়। এরই মধ্য রিয়া দিকে অবাক ভাবে তাকিয়া থাকার কারনে বন্ধুরাও বুঝে যায় জয় রিয়াকে ভালোবাসে। জানা

একটি বাস্তব প্রেমের গল্প……

bijoy_photo_lifestyle38588_0

এটি আমার এক বন্ধুর বাস্তব প্রেমের গল্প… আমার বন্ধুরা কোন সুন্দরী মেয়ে দেখলেই বাদরামি শয়তানি চালিয়ে যেতে থাকে আর আমি ওদের সাথে থাকলে কোন মেয়ে দেখলে পালিয়ে যেতাম । হেডস্যারের কাছে ওদের নামে প্রায় প্রতিদিন নালিশ আসত আমরা ক্লাস করতাম ছেলে মেয়ে একসাথে আমাদের ক্লাসের এমন কোন মেয়ে নেই যারা আমার বন্ধুদের বাঁদরামির শিকার হয়নি । ও ভাল কথা আমার বন্ধুদের সাথে আপনাদের পরিচয় করানই হলনা …. বন্ধুদের গ্রুপ সাধারণত হয় দুই, চার বা জোড় সংখ্যায় ব্যতিক্রমও ঘটে প্রায়ই এমনই

ছেলে ও মেয়ে উভয়কে পটানোর জন্য দরকার

yeabha

ছেলে ও মেয়ে উভয়কে পটানোর জন্য দরকার দৈহিক সৌন্দর্য তাই দৈহিক সৌন্দর্যের বিষয়ে থাকতে হবে সচেতন মানে বেশি মোটাও হওয়া যাবে না আবার বেশি চিকনও হওয়া যাবে না। বর্তমান যুগের প্রেম একটু জটিল তাই চেহারার দিকে খেয়াল রাখা দরকার। এক সাথে আবার দুটা প্রেম করতে যাবেন না , মানে দুই নৌকায় পা দিবেন না। আর যদি তা করেন নৌকা উলটিয়ে পানিতে পরবেন নিশ্চিত থাকুন ১০০% । ভালোবাসি কথাটা বেশি বেশি বলাটাও যেমন সন্দেহজনক আবার না বললেও সন্দেহজনক তাই সুন্দর সময়

ঘুম হারানো রাত

5.-milon

কখনো যদি এমন হয়- তুমি আর আমি একসাথে আমাদের সব স্বপ্ন পূরণ করবো কখনো যদি এমন হয়- আমি কিছু না বলতেই তুমি সব শুনে নেবে আমাদের চলার পথও এক হয়ে যাবে তখন আমার হাতের মুঠোয় তোমার উষ্ণ স্পর্শ থাকবে সেদিন কেন আজ মনে হয় তুমিহিনা অসম্পূর্ণ এ পৃথিবী? কেন আজ প্রথম প্রেমের শিহরণ তুমিবিনা অসম্পৃক্ত? সেই তোমার পাশে কাটানো কোন এক বসন্ত আর ভালবাসার নিঃশ্বাসে জড়িয়ে থাকা মায়াজালের হাতছানি- আজও প্রতিরাতে আমাকে কাঁদায় কখনো যদি এমন হয়- সব শেষের শুরুতে

তুই কি জানিস না

married

পড়ন্ত বিকেলে চারুকলার সামনে থেকে জুঁইকে একগোছা চুড়ি কিনে দেয় রাহুল । জুঁইয়ের পরনে হলুদ শাড়ি, হাতে লাল চুড়ি। গালে হালকা মিষ্টি রোদ মেখে হাত ধরাধরি করে হেঁটে এগিয়ে চলে ওরা । স্মৃতি ভাস্কর্য , টিএসসি পেরিয়ে বইমেলার মূল প্রাঙ্গনে ঢোকে ওরা । দূরে কোথা থেকে মাইকে গান ভেসে আসছে তরুন তরুনীদের কন্ঠে । “আজ হোক না রং ফ্যাকাশে তোমার আমার আকাশে চাঁদের হাসি যত-ই হোক না ক্লান্ত বৃষ্টি নামুক নাইবা নামুক ঝড় উঠুক নাইবা উঠুক আজ বসন্ত ।” রাহুল

এসো হাত ধরি

Shojol_mim20150327122343

বিকেল পাঁচটা। বার বার ঘড়ি দেখছে শুভ। আজ বাসায় তাড়াতাড়ি যেতে হবে। শাহাবাগ থেকে নিবে কিছু গোলাপ ফুল আর নীলক্ষেত থেকে নিবে দুটো হুমায়ুন আহমেদের বই। আহামরি তেমন কিছুই না কিন্তু শুভ জানে এই দুটো জিনিস পেলে কি যে খুশী হবে বৃষ্টি। বৃষ্টি আর কেউ না শুভর বিবাহিতা স্ত্রী। বিয়ের পড়ে আজ তার প্রথম জন্মদিন। জন্মদিন উপলক্ষে বৃষ্টির কয়েকজন বান্ধুবি, শুভর মামা মামি কে দাওয়াত করেছে বৃষ্টি। শুভ কেও বার বার বলে দিয়েছে যেন আটটার মধ্যেই চলে আসে শুভ। সাড়ে

মধ্য দুপুরের একটি ভেজা স্বপ্ন

kissing-Picture9

-সজিব ভাইয়া একটু শুনে যাবেন? প্রিয়তা কাচুমাচু হয়ে গ্রুপ আড্ডা থেকে ডাক দিল সজিবকে। -হুম বল প্রিয়তা। -ভাইয়া রুদ্র কোথায়? ওকে কিছুদিন হলো ক্যাম্পাসে দেখছিনা যে? -আজ হঠাৎ ঐ ননসেন্স এর কথা তোমার মনে হল যে? ভাইয়া সেদিনের ব্যাপারে সত্যি-ই আমি দুঃখিত… -ও আছে ভালোই আছে! কিছু বলতে হবে? -ওকে সরি বলবেন প্লিজ… -হুম বলব, আর কিছু? -আর…না আর কিছু না। কথা শেষে প্রিয়তা ওর ডিপার্টমেন্টে চলে গেল। গত ৫দিন ধরে প্রিয়তা রুদ্রর জন্যে অপেক্ষা করছে অথচ রুদ্র দেখা মিলছেই

বর্ণহীন ভালোবাসা

llv

আজ হটাৎ করেই সন্ধ্যারাত মানে ৮টা থেকেই ঝুম বৃষ্টি। এখন রাত্রি ১০টা ৩০, থামার নাম গন্ধই নেই। কি আজব রে বাবা। ভিজতে ভিজতে ৯টার দিকে বাসায় আসলাম। মাথাটা কোনমতে মুছে নিয়ে বিছানায় সটান হয়ে পড়লেও এখনো ঘুম আসলো না। রাতে খাবার জন্য মা অনেক ডাক দিলেও গেলাম না। এখন একটু একটু খিদা লাগছে। কি করা যায়, খিদা নষ্ট করতে হবে। প্যান্টের পকেটে ২টা বেনসন আছে, ঐটা ধরিয়েই খিদাটাকে মারতে হবে। অনেকটা খুন করার মতো। কিন্তু খিদা তো আর মানুষ না

মাঝরাতের বৃষ্টি কিংবা মান ভাঙ্গানোর জল

kissing-Picture1

হটাত কিসের রিনিঝিনি আওয়াজে ঘুম টা ভেঙ্গে গেল, এতরাতে এই আওয়াজ টা কোত্থেকে আসবে বুঝলাম না, নিজেকে আবিস্কার করলাম সোফাতে, মোবাইলে সময় দেখলাম ২.৩০ হল। সন্ধ্যায় ওর সাথে একটু রাগারাগি হয়েছিল, আর আমি ফিরেছিও দেরি করে,আর সোফাতে বসে বসে ল্যাপটপে কাজ করতে করতে দেখি কখন ঘুমালাম নিজেই জানিনা। বাইরে দেখছি অঝোরে বৃষ্টি হচ্ছে। আওয়াজ টা আবার পেলাম, ঐটা তো আমাদের রুম থেকে আসছে, উঁকি দিয়ে দেখলাম আমার রুমের ড্রেসিং টেবিল এর সামনে এক নীল পরী সাজছে, আর আওয়াজ টা মৌরীর

একটি মেয়ে ও চাওয়া পাওয়া

Kiss-a-boy

প্রত্যকটি মেয়ে চায়, পড়ন্ত বিকেলে যখন কোন ও পার্কে অথবা লেকের পাশে বসে থাকবে আর হটাত করে এক উড়ন্ত বাতাস এসে মেয়েটির চুল মুখের সামনে এসে পরবে, ছেলেটি আস্তে করে চুলগুলিকে ঠিক করে দিয়ে বলবে ” হারামি বাতাস আমার বউরে ভালা কইরা দেখতে ও দেয়না” প্রত্যকটি মেয়ে চায়, যখন সে আইসক্রিম খাবে আর বলবে আইসক্রিম আমার জান আর সাথে সাথে ছেলে অভিমান করে বলবে ” আচ্ছা থাকো তোমার জান নিয়ে আমি তো তোমার কেউ না আমি যাই” প্রত্যকটি মেয়ে চায়,

« Older Entries