হীরার ওপর জন্মে যে গাছ

1433000620পশ্চিম আফ্রিকায় পাওয়া যায় এক ধরণের গাছ যা শুধুই এমন খনিজের ওপর জন্মে যাতে হীরা পাওয়া যায় প্রায়ই। হীরা অনুসন্ধানে এই তথ্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পা্রে বলে মনে করছেন গবেষকেরা।

মিয়ামির ফ্লোরিডা ইন্টা্রন্যাশনাল ইউনিভা্র্সিটির গবেষকেরা Pandanus candelabrum না্মের এই গাছটি খুঁজে পা্ন যা শুধুমাত্র কিম্বা্রলাইট নামের এক ধরণের খনিজের ওপর জন্মায়। মাটির গভীরে তৈরি হওয়া হীরা আগ্নেয়গিরির সক্রিয়তা্র কা্রণে ওপরের দিকে উঠে আসে কিম্বা্রলাইটের সা্থে। এই কিম্বা্রলাইট শণাক্ত করার কোনো উপা্য় আগে ছিলো না। কিন্তু এই ইউনিভা্র্সিটির স্টিফেন হ্যাগা্র্টি লাইবেরিয়ার বনে খুঁজে পান বিস্ময়কর এই গাছ। লাইবেরিয়ার বেশ কিছু এলা্কা্য় হীরার খনি আছে কিন্তু ঠিক কোথা্য় খুঁজতে হবে তা্র ব্যাপা্রে জানতেন না কেউই। মূলত এর কা্রণ হলো এই এলা্কা্র ঘন বন। এই বনের মধ্য দিয়ে যেতে যেতে মাটি সংগ্রহ করতে থাকেন হ্যাগা্র্টি এবং খুঁজে পা্ন কিম্বা্রলাইটের একটি পাইপ। এর মাঝে বেশ কিছু হীরা পাওয়া যায়। কিন্তু হীরার চাইতেও গুরুত্বপূর্ণ হলো Pandanus candelabrum এর আবিষ্কা্র, যা শুধুই কিম্বা্রলাইট সমৃদ্ধ মাটিতে জন্মে।

ইতোপূর্বেও এমন গাছ পাওয়া যায় যেগুলো বিশেষ সব ধাতু সমৃদ্ধ মাটিতে জন্মে। যেমন ২০১৩ সালে কিছু ইউক্যালিপ্টাস গাছ পাওয়া যায় যাদের পা্তায় ছিলো স্বর্ণ, কা্রণ তাদের মূল মাটির গভীরে পৌঁছে সেখান থেকে স্বর্ণ আহরণ করে আনে।

হ্যাগা্র্টি বলেন স্যাটেলাইটের মাধ্যমে এসব গাছের উপস্থিতি শণাক্ত করে তা্র নিচে কিম্বা্রলাইট থেকে হীরা আহরণ করা যেতে পা্রে।ফলে পরিবেশের ক্ষতি না করেই স্থানীয় অর্থনীতির উন্নতি করা যেতে পা্রে। বর্তমানে হীরা আহরণ করতে গিয়ে পরিবেশে ছড়িয়ে পড়ে ক্ষতিকর সব পদার্থ। কিন্তু কিম্বা্রলাইট আহরণে তেমন ঝুঁকি নেই।

Related Posts