শিশুর মানসিক বিকাশে খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা

FB_IMG_1429523711044সুস্থ দেহ সবল মন খেলাধুলার প্রয়োজন। যদি কেউ সুস্থ দেহ ও সবল মন চায় তাহলে

খেলাধুলার কোন বিকল্প নেই। খেলাধুলাই একমাত্র সঠিক ব্যক্তিত্ব বিকাশ ও সুস্থ শরীর

গঠনে কার্যকরী ভুমিকা পালন করে। একটি শিশু বিভিন্ন মাধ্যম থেকে বিনোদন খুঁজে।

তবে বর্তমানে শিশুদের সবচেয়ে বড় বিনোদনের কেন্দ্র বিন্দু হল খেলাধুলা।

খেলাধুলার মাধ্যমে শিশুদের মধ্যে ভাতৃত্ববোধ ও সম্প্রীতির সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে।

শিশুর মানসিক বিকাশে খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তাঃ

খেলাধুলা শিশুদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। খেলাধুলার মাধ্যমেই একটি শিশুর শারিরীক,

মানসিক ও ব্যক্তিত্বের বিকাশ সাধিত হয়। আজকে আমারা শিশুর মানসিক বিকাশে খেলাধুলার ভুমিকা

নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আলোচনা করব।

১. ব্যক্তিত্ব বিকাশেঃ

খেলাধুলার মাধ্যমে একটি শিশু আরেক জনের সাথে পরিচিত হয়। একে অপরের সহচার্যে

আস্তে আস্তে তারা নিজেদের মধ্যে সু-সম্পর্ক গড়ে তুলে। এর ফলে শিশুদের

মধ্যে ভাল ব্যক্তিত্ব গড়ে ওঠে।

২. সুস্থ শরীর গঠনেঃ

প্রতিদিন খেলাধুলার মাধ্যমে আস্তে আস্তে শিশুদের শরীর শক্ত হতে থাকে। এসময়

শিশুদের হাড় ও মাসেলস শক্তিশালী হয় ও তারা আরো দ্রুত বেড়ে ওঠে। খেলাধুলার

মাধ্যমে তাদের শরীর স্বাভাবিক ভাবেই শক্তিশালী ও সুদৃঢ় হয়। প্রতিনিয়ত খেলাধুলা করলে

শিশুদের উদ্দিপনা ও কর্মদক্ষতা বৃদ্ধি পেতে থাকে।

3. বিনোদনের উৎসহ হিসেবেঃ

সবাই বিনোদন খুঁজে। আর শিশুদের মধ্যে বিনোদনের চাহিদাটা আর একটু বেশি। তবে

বর্তমানে যত রকমের বিনোদন মাধ্যম রয়েছে তার মধ্যে খেলাধুলা অন্যতম। খেলাধুলা

একটি শিশুর স্বাভাবিক বিকাশ সাধন করে। শিশুর জন্য খেলাধুলা বিনোদনের খোরাক হিসেবে

কাজ করে। একটি ছোট শিশুর কাছে খেলাধুলার চাইতে আরো বড় বিনোদন আর কি হতে

পারে।

4. ভাল আচরণ গঠনেঃ

খেলাধুলা মানুষকে পুর্ণঙ্গ আচরণ শিক্ষা দেয়। এটা শিশুর ক্ষেত্রেও ব্যতিক্রম নয়।

খেলাধুলা একটি শিশুকে শিক্ষা দেয় কিভাবে ভাল আচরণ করতে হয়? কিভাবে প্রতিপক্ষ

খেলোয়াড়ের সাথে ভাল ব্যবহার করতে হয়। হার ও জিতকে সহজে কিভাবে মেনে

নেওয়া যায় তাও খেলাধুলার মাধ্যমেই একটি শিশু শিখে থাকে। তাই ভাল আচরণ গঠনে

খেলাধুলার বিকল্প নেই।

Related Posts

Comments

comments