ত্বকের ঘাতক সাবান, শ্যাম্পু ও টুথপেস্ট!

53555cea4367f-6মায়াবী মুখের সুন্দর ত্বকটিকে আরও মৃসণ রাখার জন্য সুগন্ধী সাবান ব্যবহার করা হয়ে থাকে। চুলগুলোকে আরও ঝরঝরে রাখতে শ্যাম্পুর যেন বিকল্প নেই। আর মুক্তোঝরা হাসি ধরে রাখতে দাঁত ব্রাশে টুথপেস্টতো নিয়মিত ব্যবহার্য উপকরণই।

অথচ এই তিনটি নিত্যব্যবহার্য প্রসাধনীকেই মুখের ত্বকের জন্য আত্মঘাতী বলছেন গবেষকরা। বিশেষ করে নাকে সংক্রমণের (ইনফেকশন) জন্য এই তিনটি প্রসাধনীই বিশেষাংশে দায়ী বলে গবেষকদের অভিমত।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ‘এমবায়ো’ জার্নালে প্রকাশিত গবেষণায় এ তথ্য জানিয়েছেন ইউনিভার্সিটি অব মিশিগানের গবেষকরা।

এমবায়ো জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, মানুষের ব্যবহৃত সাবান, শ্যাম্পু ও টুথপেস্টে এমন এক ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক পদার্থ (অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল এজেন্ট) রয়েছে যেটা মানুষের নাকে প্রবেশ করে স্ট্যাফিলোকোকাস অরিয়াস নামে এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া উৎপাদন করে। যার ফলে ব্যবহারকারীর ত্বকে সংক্রমণ তৈরি হতে পারে।

গবেষকদের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়, নিত্য ব্যবহার্য সাবান, টুথপেস্ট, রান্নাঘর ও জামা-কাপড় পরিষ্কার করার উপকরণ এবং চিকিৎসাসেবায় ব্যবহার্য সরঞ্জামাদিতে ‘ত্রাইক্লোজান’ নামে মানুষের তৈরি যে যৌগ পদার্থ ব্যবহার করা হয় তার ৪১ শতাংশ পাওয়া যায় প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের নাসিকাগ্রন্থিতে।

ইউনিভার্সিটি অব মিশিগানের মলিকিউলার, সেলুলার অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টাল বায়োলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও গবেষণা দলের লেখক ব্লেইজ বোলস বলেন, নিত্যব্যবহার্য সাবান, টুথপেস্ট ও মাউথওয়াশ আমাদের ত্বকের বা দাঁতের যত্নে অনেক কাজ করে তার কোনো প্রমাণ আমাদের হাতে নেই।

তিনি বলেন, গবেষণায় খুঁজে পাওয়া অ্যান্টিবায়োটিক এজেন্ট আমাদের অজান্তেই ত্বকে স্থান করে নেয় এবং এর মাধ্যমে কাউকে কাউকে সংক্রমণের ঝুঁকিতে ফেলে দেয়।

Related Posts