গোলাপ পাতার জাদুকরী রহস্য

1.4_209826_3কে বলে গোলাপ ফুল শুধু ভালোবাসার মানুষকে দেয়ার জন্যই? যুগের পর যুগ ধরে নারীরা ভালোবাসার প্রতীক এই গোলাপ ফুলের পাতা তাদের সৌন্দর্য বাড়াতে রূপচর্চায় ব্যবহার করে আসছেন।

এমনকি কথিত আছে প্রাচীণ গ্রিসে উচ্চবিত্ত রোমানরা গোসলের সময় সুগন্ধি হিসেবে ব্যবহার করতেন গোলাপ পাতা। ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতে ও চুলের যত্নে জাদুকরী কাজ করে গোলাপজল, গোলাপ তেল, গোলাপের পাতা।

আসুন জেনে নেই সুন্দর এই ফুলটির পাতার অজানা গুণগুলো-

স্কিন টোনার: প্রাকৃতিক স্কিন টোনার হিসেবে গোলাপজলে কোনো বিকল্প নেই।সারাদিন কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পর তুলোয় গোলাপজল নিয়ে আলতো করে বৃত্তাকারে মুখ পরিষ্কার করলে রোদা পোড়া ভাব কেটে যায়, পরিষ্কার হয়ে ত্বকের নিচে জমে থাকা ময়লা।

মসৃণ ত্বকের জন্য গোলাপের তেল: গোলাপের মধ্যে যে প্রাকৃতিক তেল পাওয়া যায় তা ত্বকে মশ্চারাইজার ধরে রাখে।ত্বক হয়ে কোমল ও মসৃণ।গোলাপ পাতার মধ্যে যে চিনি রয়েছে তা সেনসেটিভ ত্বকের জন্য খুবই উপকারি।

সানস্ক্রিন হিসেবে গোলাপ পাতা: গোলাপ পাতায় উচ্চমাত্রায় ভিটামিন সি আছে যা সানস্ক্রিন হিসেবে চমৎকার কাজ করে।বাহিরে যাওয়ার আগে শশার রসের সঙ্গে সামান্য একটু গ্লিসারিন ও গোলাপজল নিয়ে লোশন তৈরি করে মুখে লাগালে অনেক উপকার পাওয়া যাবে।

ব্রণ সমস্যায় গোলাপজল: গোলাপ পাতায় আছে বিভিন্ন ব্যাক্টেরিয়া রোধকারী উপাদান।যা ব্রণ থেকে ত্বককে রেহাই দেয়।ব্রণ হলে গোলাপজল ব্যবহার করলে খুব দ্রুত ব্রণ চলে যাবে।

চোখের নিচে কালি দূর করে গোলাপজল: চোখের নিচে পড়া কালো দাগ দূর করতে তুলোয় গোলাপজল ভিজিয়ে চোখের ওপর কিছুক্ষণ ধরে রাখুন। ১ সপ্তাহের মধ্যে কোলো দাগ চলে যাবে।
চুলের যত্নে গোলাপজল: চুলের গোড়ায় গোলাপজল লাগিয়ে কিছুক্ষণ ম্যাসাজ করলে খুশকির মতো ভয়াবহ সমস্যা দূর হয়।আর চুলের গোড়ায় রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়। ফলে খুব দ্রুত চুল বড় হয়। মাথায় গজায় নতুন চুল।

Related Posts

Comments

comments