কার জন্য কেমন উপহার, জেনে নিন কিছু টিপস

কার জন্য কেমন উপহার, জেনে নিন কিছু টিপসউপহার পেতে কে না ভালোবাসেন! কিন্তু যখন কারো জন্য উপহার কেনার পালা আসে, তখন পিছিয়ে আসেন অনেকেই। কারণ কী? কারণ আর কিছুই না, উপহার নির্বাচন নিয়ে বিভ্রান্তি। কেমন উপহার কিনবেন, যার জন্য কিনবেন তার পছন্দ হবে কি না, তার কাজে লাগবে কি না – এসব নিয়েই দ্বিধায় পড়ে যান অনেকে। কার জন্য কেমন উপহার কিনলে খুশি করতে পারবেন রইলো কিছু টিপস। আশা করি কাজে লাগবে।

পরিবারের সদস্যদের জন্য
– পরিবারের সদস্যদের পছন্দ-অপছন্দ জানা তুলনামূলক সহজ। তাই সে কথা মাথায় রেখেই উপহার নির্বাচন করুন। উপহার নির্বাচনের সময় এর কার্যকারিতা এবং বাজেটও মাথায় রাখুন। উপহার যে কোনো বিশেষ দিনেই দিতে হবে তার কোনো মানে নেই। কোনো কারণ ছাড়াও বাড়ির সদস্যদের জন্য উপহার কিনে এনে চমকে দিতে পারেন।
– বাড়ির বড়দের জন্য বাড়ি সাজানোর বিভিন্ন সামগ্রী যেমন ডেকোরেটিভ ক্যান্ডেল, ল্যাম্পশেড ইত্যাদি কিনে দিতে পারেন। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের ক্রোকারিজ বা অন্যান্য গাজেটসও হতে পারে ভালো উপহার
– ভাই-বোনের জন্য উপহার নির্বাচনের সময় তাদের পছন্দের কথা অবশ্যই মাথায় রাখুন। আজকাল বিভিন্ন বুক স্টোর, মিউজিক স্টোর, পোশাকের দোকানের গিফট ভাউচার পাওয়া যায়, উপহার হিসেবে এগুলো দিতে পারেন। পোশাক যেকোনো মানুষকে খুশি করার জন্য ভালো উপহার। অথবা ভালো পারফিউমও গিফট করতে পারেন। বোনের জন্য ট্রেন্ডি হ্যান্ডব্যাগ হতে পারে খুব ভালো উপহার।
স্বামীকে সারপ্রাইজ দিতে কোনো হলিডে প্ল্যান করতে পারেন। টিকিট কাটা থেকে শুরু করে হোটেল বুক করা সব ব্যবস্থা নিজেই করে ফেলে স্বামীকে অবাক করে দিন। আর আপনার স্বামী যদি হন টেক স্যাভি, তাহলে লেটেস্ট মোবাইল ফোন, ঘড়ি, ল্যাপটপ উপহারের জন্য আদর্শ।
– স্ত্রীকে হাউজহোল্ড গ্যাজেট যেমন ওয়াশিং মেশিন, মাইক্রোওয়েভ ওভেন উপহার দিতে পারেন। ঘর সাজানোর শৌখিন শোপিস, ছোটখাট অলংকার উপহার হিসেবে খুব রোমান্টিক। আর শাড়ি তো রইলোই। স্ত্রীর যদি বাগান করার শখ থাকে তাহলে বিভিন্ন ধরনের গাছের চারাও উপহার দিতে পারেন।

বন্ধুর জন্য
– বন্ধু যদি ছোটবেলার হন তাহলে আপনাদের দুজনের পুরোনো কোনো ছবি থাকলে তা ফ্রেমে বাঁধিয়ে উপহার দিতে পারেন। আরো ভালো হয় যদি ফ্রেমটা আপনি নিজের হাতে তৈরি করেন। ছবিতে মজার কোনো কিছু লিখে দিতে পারেন।
– আপনার বন্ধু যদি চা বা কফি খেতে পছন্দ করেন তাহলে তাকে দিতে পারেন সুন্দর কোনো মগ। ভালো কোনো কফি বা তার পছন্দের ফ্লেভারের চাও উপহার দিতে পারেন। এছাড়া বন্ধুর পছন্দের লেখকের বইও হতে পারে তার জন্য চমত্‍কার উপহার।
– ব্যবহার্য বিভিন্ন জিনিস যেমন চাবির রিং, কলমদানি, নোটবুক, ডায়েরি ইত্যাদি বেশ ভালো উপহার হতে পারে। তিনি যদি গান শুনতে ভালোবাসেন তাহলে তার পছন্দের গায়ক বা গায়িকার গানের সিডি দিতে পারেন। বাজেট বেশি হলে গান শোনার কোনো গ্যাজেট উপহার দিতে পারেন।

সহকর্মীর জন্য
– অফিসের সহকর্মীর সাথে পরিচয় যেহেতু কর্মসূত্রে তাই খুব বেশি ব্যক্তিগত উপহার দেবেন না। কোনো বিশেষ উপলক্ষ হলে ফুল খুব ভালো উপহার।
– অফিস ডেস্ক অ্যাকসেসরিজ দিতে পারেন। যেমন কলমদানি, ডেস্ক অর্গানাইজার, বিজনেস কার্ড হোল্ডার, ডেস্কে রাখার মতো ঘড়ি বা পেপার ওয়েড। এর সাথে দিতে পারেন সুন্দর কোনো মেসেজ।
– কোনো বায়োগ্রাফি বই বা ভালো সিনেমার কালেকশন উপহার হিসেবে খুব ভালো। এছাড়া নোটবুক, ফর্মাল ঘড়ি বা ছোট্ট শোপিসও দিতে পারেন।

উপহার প্যাকিং
উপহার র্যাপিং পেপারে না মুড়ে পরিবেশ বান্ধব হ্যান্ডমেড পেপারে মুড়ে দিতে পারেন। অলংকার বা আকারে ছোট্ট কোনো জিনিস উপহার দেয়ার সময় প্যাকেটে না দিয়ে বাহারি পাউচ বা বটুয়ায় দিতে পারেন। দেখতে চমত্‍কার লাগবে, যাকে

Related Posts