কাজের পরে…হাতের যত্ন

8f58f78066cc83b3f4feee549c8ccae8আপনজনদের জন্য রান্নাবান্না ছাড়াও কত কী করেন আপনি। সারাটা দিন নানা কাজে ব্যস্ত থাকে আপনার হাত। এত সব কাজের মধ্যে হাতেরও চাই যত্ন। হাতের যত্ন প্রসঙ্গে সোনালীস এইচডি মেকআপ স্টুডিও’র রূপবিশেষজ্ঞ সোনালী ফেরদৌসী মজুমদার বলেন, ‘হাত পরিষ্কার করার জন্য কুসুম গরম পানি ব্যবহার করতে হবে। একেবারে গরম পানি হাতে ব্যবহার করা ঠিক নয়।’

হাতের যত্নে তিনি দিয়েছেন আরও কিছু পরামর্শ—

হাতে লবণ ঘষে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে পারেন। এতে হাতের ত্বক পরিষ্কার থাকবে।
সব কাজ যখন শেষ হয়ে যাবে, তখন তরল সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার সময় ব্রাশের সাহায্যে হাতের আঙুল ও নখ পরিষ্কার করতে পারেন।
.বিশেষ যত্ন
কমলালেবুর রস এবং মধু একসঙ্গে মিশিয়ে নিয়ে হাতে ম্যাসাজ করুন। তারপর হাত পরিষ্কার করে ফেলুন।
যাঁদের হাতের ত্বক শুষ্ক অথবা পানি নাড়াচাড়া করার ফলে যাঁদের হাতের ত্বকে শুষ্কভাব চলে আসে, তাঁরা হাতে চিনি এবং অলিভ অয়েলের মিশ্রণ ব্যবহার করতে পারেন। এ মিশ্রণটি তৈরি করতে চা-চামচের চার ভাগের এক ভাগ চিনির সঙ্গে সমপরিমাণ অলিভ অয়েল মেশাতে হবে। মিশ্রণটি ম্যাসাজ করে কিছুক্ষণ লাগিয়ে রাখলে হাতের শুষ্কভাব দূর হবে। এ ছাড়া বাজারে বিশেষ একধরনের লোশন (ইউসেরিন) কিনতে পাওয়া যায়, হাতের ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক মনে হলে এটি ব্যবহার করতে পারেন। তবে এ লোশন নিয়মিত ব্যবহার করতে হবে, এক-দুই দিন ব্যবহার করলে চলবে না।
হাতের ত্বক তৈলাক্ত হলে শসা অথবা লেবুর রসের সাহায্যে হাত পরিষ্কার করুন।

কাজের মধ্যে

হাতের ত্বক যেমনই হোক না কেন, বাসন-কোসন ধোয়ার সময় গ্লাভস ব্যবহার করতে পারেন। এতে হাতের ত্বক ভালো থাকবে। মাংস কাটার সময়ও গ্লাভস ব্যবহার করুন।

.হাতের ত্বক নরম রাখতে
সব কাজ শেষে হাত ধোয়া ও শুকিয়ে নেওয়ার পর হাতে ক্রিম বা পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে গ্লাভস পরে থাকতে পারেন। এতে হাতের ত্বক কোমল থাকবে।
অতিরিক্ত ক্ষারসমৃদ্ধ সাবান ব্যবহার করবেন না।
দিনে অন্তত চারবার হাত পরিষ্কার করে নিয়ে শুকানোর পর ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে।

কালো ছোপ যখন হাতে
বিভিন্ন কারণে হাতে কালো ছোপ হতে পারে। কালো ছোপ দূর করার জন্য হাতে ফেয়ার পলিশ করাতে পারেন। ফেয়ার পলিশ করালে ধীরে ধীরে কালচে ভাব কমে আসবে। আর যেসব সবজি কাটলে হাতে কালচে ভাব আসতে পারে, সেগুলো কাটার সময় গ্লাভস ব্যবহার করতে পারেন।

Related Posts